বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৫:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল রোগীদের সাথে ঈদের আনন্দ উপভোগ করলেন পৌর মেয়র সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে লক্ষ্মীপুরে ১১ গ্রামে ঈদুল আযহা উদযাপন লক্ষ্মীপুর ৪ রামগতি-কমলনগরের রাজনীতিক নেতারা কে কোথায় ঈদ করবেন! ছাত্রলীগ নেতা সজীব হত্যার আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশ কমলনগরে লরেন্স ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান আবদুল খালেক লক্ষ্মীপুরে ট্রাকচাপায় বাইসাইকেল আরোহী নিহত চর রমনী ইউনিয়ন ব্যবসায়ীর ২ লক্ষ টাকা ছিনতাই এর অভিযোগ যুবলীগ নেতা কামরুল সরকারগংদের বিরুদ্ধে  ঋণের বেড়াজালে পড়ে কমলনগরে ব্যবসায়ির আত্মহত্যা কমলনগরে স্হানীয় সম্পদ আহরণ-বাজেট বিষয়ক প্রশিক্ষণসভা লক্ষ্মীপুর পৌরসভায় ভিজিএফএর চাল পেল ৫ হাজার অসহায় পরিবার

ইডিএফ কমিয়ে রপ্তানি সহায়ক তহবিলে ঋণ বাড়ানোর চেষ্টা

সংবাদ দাতার নাম
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৮ মে, ২০২৩
  • ৩৮ বার পড়া হয়েছে

আইএমএফের শর্ত মেনে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়াতে রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলের (ইডিএফ) আকার কমাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ইডিএফের আকার ৭ বিলিয়ন থেকে কমিয়ে এরই মধ্যে ৪ দশমিক ৭৭ বিলিয়ন ডলারে নামানো হয়েছে। তবে রপ্তানিকারকরা যেন কাঁচামাল কেনার অর্থ সংকটে না পড়েন, সে জন্য স্থানীয় মুদ্রায় গঠিত কম সুদের ১০ হাজার কোটি টাকার তহবিল থেকে বিতরণ বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

এ তহবিল থেকে সাড়ে ৪ মাসে ৩৬শ কোটি টাকা বিতরণ হয়েছে বলে জানা গেছে। জানা গেছে, ইডিএফের বিকল্প হিসেবে গঠিত ১০ হাজার কোটি টাকার রপ্তানি সহায়ক তহবিল থেকে বর্তমানে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে ঋণ ছাড় হচ্ছে। ঋণ ছাড় দ্রুত করতে একটি সফটওয়্যার ডেভেলপের কাজ করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এটি শেষ হলে ঋণ ছাড় দ্রুত করতে ব্যাংকগুলোকে তাগাদাপত্র দেওয়া হবে।

আইএমএফ থেকে ৪৭০ কোটি ডলার ঋণের প্রথম কিস্তি পেয়েছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় কিস্তি ছাড় হতে পারে আগামী নভেম্বর মাসে। এর আগেই কিছু শর্ত পরিপালন করতে হবে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি শর্ত হলো– দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের হিসাব করতে হবে আইএমএফের বিপিএম৬ ম্যানুয়াল অনুযায়ী। সে আলোকে আগামী জুনে নিট রিজার্ভ হতে হবে ২৪ দশমিক ৪৬ বিলিয়ন ডলার এবং সেপ্টেম্বরে ২৫ দশমিক ৩২ বিলিয়ন ডলার। নিট রিজার্ভ হিসাবের ক্ষেত্রে ইডিএফসহ বিভিন্ন তহবিলে জোগান দেওয়া অর্থ দেখানো যাবে না। আবার আগামী এক বছরে যেসব দেনা পরিশোধ করতে হবে, তাও বাদ দিতে হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, নিট রিজার্ভ বাড়াতে বৈদেশিক মুদ্রার খরচ কমানোর পাশাপাশি ইডিএফের আকার কমানো হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে টাকায় গঠিত তহবিল আকর্ষণীয় করতে ইডিএফের তুলনায় কম সুদে ঋণ দেওয়া হচ্ছে। কোনো ব্যাংক সময়মতো ইডিএফের অর্থ ফেরত দিতে ব্যর্থ হলে সাড়ে ৪ শতাংশ হারে দণ্ড সুদের বিধান করা হয়েছে। ইডিএফ থেকে একক গ্রাহকের ঋণসীমা ৫০ লাখ ডলার করে কমিয়ে সর্বোচ্চ ২ কোটি ডলার করা হয়েছে। এসবের পরও এখনও টাকা তহবিলের চেয়ে বৈদেশিক মুদ্রায় ঋণ নিতেই বেশি আগ্রহ রপ্তানিকারকদের।

বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, রপ্তানিকারকদের কাঁচামাল কিনতে বৈদেশিক মুদ্রার প্রয়োজন হয়। তাঁরা যেহেতু ডলার আয় করেই অর্থ পরিশোধ করেন, সেহেতু বিনিময় হার জনিত লোকসানের ঝুঁকি থাকে না। তবে টাকায় ঋণ নিয়ে ডলারে রূপান্তর করতে গেলে বিনিময় হার জনিত একটি লোকসান হয়। যে কারণে নানা শর্তের পরও ইডিএফ থেকে ঋণ নিতেই বেশি আগ্রহ তাঁদের।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৩ অপরাহ্ণ
  • ১৬:৪০ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৫২ অপরাহ্ণ
  • ২০:১৮ অপরাহ্ণ
  • ৫:১১ পূর্বাহ্ণ
কপিরাইট © ২০২৩সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
themesba-lates1749691102